Your Website
Fact About Boys

ছেলেদের সম্পর্কে অজানা তথ্য- সাইকোলজিকাল ফ্যাক্ট

ছেলেদের সম্পর্কে অজানা তথ্য। পুরুষেরা নিজেদের মনকে এত শক্ত খোলসের আড়ালে লুকিয়ে রাখেন যেটা বাইরে থেকে দেখলে বোঝার উপায় নাই। তাই পুরুষকে বোঝা যতটা সহজ ভাববেন ঠিক ততটা সহজ নয়। ছেলেদের সম্পর্কে অনেক কিছুই অজানা তথ্য রয়েছে যা ছেলেরা সাধারণত কারো সামনে প্রকাশ করে না। সারা বিশ্বে দেখা যায় পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের গড় আয়ু বেশি।-Fact About Boys

আপনি কি জানেন পুরুষেরা তাদের জীবনকালের মধ্য প্রায় এক বছর সময় মেয়েদের দেখেই কাটিয়ে দেয়। এমনকি মিথ্যা কথা বলার দিক দিয়েও পুরুষেরা এগিয়ে রয়েছে মহিলাদের থেকে। সমীক্ষায় দেখা গেছে একজন পুরুষ দিনে একজন মহিলার থেকে দ্বিগুণ মিথ্যা কথা বলে। ছেলেদের সম্পর্কে এসব সাইকোলজিক্যাল ফ্যাক্ট যে সবার ক্ষেত্রেই সত্য এমনটি নয়। বরং পৃথিবীর বেশিরভাগ ছেলেদের মধ্যেই এমন রয়েছে।

ছেলেদের মধ্যেও নিজের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন কিছু করার ভাবনা মেয়েদের থেকে অনেক গুণ বেশি রয়েছে। রিস্ক নেওয়ার প্রবণতা ছেলেদের মধ্যে অনেক বেশি দেখা যায়। কোন বিপদে ছেলেরা মেয়েদের তুলনায় আগে এগিয়ে যায়। কিন্তু পক্ষান্তরে মেয়েরা এগিয়ে যাওয়ার বিপরীতে সেখান থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ কারণেই হয়তো বলা হয়েছে প্রত্যেক মেয়ের অন্তত একজন ভালো ছেলে বন্ধু থাকা উচিত। গৃহ পরিবেশের বাইরে সুরক্ষার খাতিরে।

ছেলেরা মেয়েদের তুলনায় অনেক দেরিতে পরিপক্ক হয়। অর্থাৎ সামাজিকতার মনোভাব ছেলেদের মধ্যেও অনেক দেরি করে আসে। কিন্তু মেয়েদের মধ্যে সামাজিকতার মনোভাব তাড়াতাড়ি চলে আসে। প্রেমে প্রপোজ করার দিক দিয়ে ছেলেরাই অগ্রগামী। খুব কম সংখ্যক মেয়েই রয়েছেন যারা ছেলেদের প্রপোজ করে। কিছু কিছু ছেলে আছে যারা একটু অন্য স্বভাবের এরা ভাবে মেয়েরাই তাদের প্রপোজ করবে। কিন্তু মনোবিজ্ঞান বলে এ ঘটনা বিরল যেখানে একজন মেয়ে কোন ছেলেকে প্রস্তাব দিবে।

বুদ্ধিমান ছেলেরা প্রথমে নিজের ক্যারিয়ার গোছানো নিয়ে বেশি চিন্তা ভাবনা করে। এবং পরে প্রেম বিবাহ নিয়ে চিন্তা ভাবনা করে। এমন অনেক ছেলে রয়েছে যারা অনেকটা চাপা স্বভাবের হয়ে থাকে এদের মুখ থেকে কথা বের করা অনেক মুশকিল। কিন্তু যদি আপনি রাতের বেলা তার মনের কথা জানতে চান তাহলে অনেকটাই সফল হতে পারেন।

ছেলেরা কথা গোপন রাখতে বেশ ভালোবাসে। এরা শুধু তাদের পছন্দের মনের মানুষের সাথেই গোপন বিষয়ে মুখ খুলে। যদি কোন ছেলে আপনাকে কোন কাজে বাধা দেয় এবং আপনি তার কথার তোয়াক্কা না করে সেই কাজটি করতে যান তাহলে দেখবেন ছেলেটি এরপর থেকে আপনাকে ইগনোর করা শুরু করবে। প্রতি হিংসা পরায়ণতা মেয়েদের থেকে ছেলেদের সবচাইতে বেশি দেখা যায়। এরা কিভাবে উপযুক্ত জবাব দিতে হয় সেটা খুব ভালোভাবে জানে।

আরো দেখুনঃ 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top