Your Website
আমদানি নিষিদ্ধ পণ্য তালিকা

আমদানি নিষিদ্ধ পণ্য তালিকা

বেশ কিছু পণ্য রয়েছে যা বাংলাদেশে আমদানি নিষিদ্ধ। এরকম অনেক পণ্য আমরা অবশ্যই আমদানি থেকে বিরত থাকবো। বাণিজ্যিকভাবে আমদানি যোগ্য পণ্যের একটি তালিকা রয়েছে। এর সাথে রয়েছে যেসব পণ্য কোনভাবেই আমদানি করা যাবেন না। আইনত এসব পণ্য আমদানি দণ্ডনীয় অপরাধ। এছাড়া বিশেষ অনুমোদন সাপেক্ষে কিছু পণ্য আমদানি করা যায় যেগুলো সহজেই আমদানি করার অনুমতি পাওয়া যায় না। আমাদের আজকের পোস্ট টি সাজানো হয়েছে এসব আমদানি নিষিদ্ধ পণ্যের তালিকা দ্বারা। তাহলে আসুন দেখে নেয়া যাক কোন ধরণের পণ্য বাংলাদেশে আমদানি নিষিদ্ধ। – List of Prohibited Import Products

আমদানি নিষিদ্ধ পণ্য তালিকা

  1. চিংড়ি
  2. জীবিত শূকর ও শূকরজাত সব ধরনের পণ্য
  3. পপি সিড
  4. পোস্তদানা
  5. ঘাস
  6. ওয়াইন লিজ ও আরগোল
  7. ঘন চিনি
  8. কৃত্রিম সরিষার তেল
  9. নিম্নমানের পণ্য অথবা পুরনো / ব্যবহৃত
  10. রিকন্ডিশন্ড পণ্য বা কারখানায় বাতিলকৃত বা স্টকলটের পণ্য ইত্যাদি

এছাড়া রয়েছে 

  1. পুরাতন বা ব্যবহৃত মোটরসাইকেল
  2. গ্যাস সিরিঞ্জ
  3. দুই স্ট্রোক ইঞ্জিন ও চেসিসবিশিষ্ট থ্রি-হুইলার যানবাহন অর্থাৎ টেম্পো
  4. অটোরিকশা
  5. ক্যাসিনোসহ জুয়া খেলার যন্ত্রপাতি
  6. রিকন্ডিশন্ড অফিস ইকুইপমেন্ট অর্থাৎ ফটোকপিয়ার
  7. টাইপরাইটার
  8. টেলেক্স
  9. ফোন
  10. ফ্যাক্স
  11. পুরনো কম্পিউটার
  12. কম্পিউটার সামগ্রী ও পুরনো ইলেকট্রনিকস সামগ্রী
  13. সব ধরনের শিল্প স্লাজ ও স্লাজ দিয়ে তৈরি সার ও যে কোনো পণ্য
  14. সব ধরনের বর্জ্য পদার্থ আমদানি-নিষিদ্ধ বলেও গেজেটে উল্লেখ করা হয়েছে

আরো রয়েছে 

‘স্টকহোম কনভেনশন অন পারসিসট্যান্ট অর্গানিক পলিউটনেস (পিওপি)’ এর আওতাধীন বিভিন্ন রাসায়নিক কীটনাশক ও শিল্পজাত দ্রব্য। যেমনঃ

  1. এলড্রিন
  2. ক্লোরডেন
  3. ডিডিটি
  4. ডাই-এলড্রিন
  5. এনড্রিন
  6. হেপ্টাক্লোর
  7. মিরেক্স
  8. টক্সফেন
  9. হেক্সক্লোরোবেনজিন
  10. পলিক্লোরিনেটেড বাই-ফিনাইল
  11. হাইড্রোলিক হর্নসহ ৭৫ ডেসিবেলের ঊর্ধ্বমাত্রার সব হর্ন
  12. পলি প্রোপাইলিন ও পলিথিন ব্যাগ ইত্যাদি।

আমদানি নিষিদ্ধ পণ্যের মধ্যে আরো আছে 

  1. বাংলাদেশের সীমারেখা দেখানো হয়নি এমন মানচিত্র
  2. বাংলাদেশের সীমারেখা দেখানো হয়নি চার্ট ও ভৌগোলিক গ্লোব
  3. হরর কমিকস
  4. অশ্লীল
  5. নাশকতামূলক সাহিত্য পুস্তিকা
  6. সংবাদ সাময়িকী
  7. পোস্টার
  8. ফটো, ফিল্ম
  9. কাগজপত্র
  10. অডিও-ভিডিও টেপ ইত্যাদি
  11. তাছাড়া ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে এমন ধরনের পণ্য ও উহার পেটিকাও তালিকায় রয়েছে।

শর্তপূরণ সাপেক্ষে আমদানি করা যাবে এমন পণ্যের তালিকা

  1. ফার্নেস অয়েল
  2. সাড়ে চার সেন্টিমিটারের কম ব্যাস বা দৈর্ঘ্যের মাছ ধরার কারেন্ট জাল
  3. পাঁচ বছরের পুরনো অধিক গাড়ি
  4. তিন বছরের বেশি পুরনো ও ১৬৫ সিসির ঊর্ধ্বে সব ধরনের মোটরসাইকেলসহ এলএনজি
  5. লিকুইফাইড প্রপেন
  6. বিউটেনস ছাড়া পেট্রোলিয়াম গ্যাস
  7. অন্যান্য গ্যাসীয় হাইড্রো-কার্বন
  8. পেট্রোলিয়াম কোক
  9. পেট্রোলিয়াম বিটুমিন ছাড়া পেট্রোলিয়াম তেলের রেসিডিউ

অন্যদিকে নতুন আমদানি নীতিমালা অনুযায়ী সব ধরনের খেলনা ও বিনোদনমূলক পণ্যের ক্ষেত্রে কোন বয়সের শিশুর জন্য প্রযোজ্য, তা উল্লেখ থাকতে হবে এবং প্লাস্টিকের তৈরি খেলনার ক্ষেত্রে তা ‘স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর নয়’ মর্মে রফতানিকারক দেশের যথাযথ কর্তৃপক্ষের সনদের প্রয়োজন হবে। এছাড়া আগের আমদানি নীতিতে বেসামরিক বিমান বা হেলিকপ্টার আমদানি উল্লেখ না থাকলেও এবার তা যোগ হয়েছে।

আরো দেখুনঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top