Narsingdi Ramadan Calendar

নরসিংদী জেলার সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৪

নরসিংদী জেলা বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা। এ জেলার অধিবাসীরা মুসলিম ধর্মাবলম্বী। পবিত্র রমজান মাস মুসলমানদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই মাসে রোজা রাখা ফরজ। রোজা রাখার জন্য সেহরি ও ইফতারের সময় জানা আবশ্যক।

নরসিংদী জেলা বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত একটি জেলা। এ জেলার অধিকাংশ মানুষ মুসলিম। মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের জন্য রমজান মাস একটি গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই মাসে তারা রোজা রাখেন এবং সেহরি ও ইফতার করেন।-Narsingdi Ramadan Calendar 2024

আজকের সেহরি ও ইফতারের সময় নরসিংদী

নরসিংদী জেলার মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা রমজান মাসকে অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে পালন করেন। এই মাসে তারা নরসিংদীবাসীরা একত্রিত হয়ে সেহরি ও ইফতার করেন। নরসিংদীর রোজাদাররা রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষায় সচেষ্ট থাকেন।

নরসিংদী জেলার রমজানের সময়সূচি অনুযায়ী, এ জেলায় রমজান মাসের দিনের দৈর্ঘ্য প্রায় ১৪ ঘণ্টা। এই কারণে, নরসিংদী জেলার রোজাদারদের জন্য রোজা রাখা তুলনামূলকভাবে সহজ। তবে, রমজান মাসের শেষের দিকে দিনের দৈর্ঘ্য বাড়তে থাকলে রোজা রাখা কঠিন হয়ে পড়তে পারে।

নরসিংদী জেলার রমজানের সময়সূচি অনুযায়ী, এ জেলায় ইফতারের সময় সন্ধ্যা ৬:২৭ মিনিট। এই সময়টি নরসিংদী জেলার আবহাওয়ার জন্য উপযুক্ত। কারণ, এই সময়ে সূর্য অস্ত যাওয়ার পর তাপমাত্রা কমে যায় এবং ইফতারের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি হয়।

নরসিংদী জেলার রমজানের সময়সূচি অনুযায়ী, এ জেলায় তারাবিহ নামাজের সময় হবে রাত ৮:০০ মিনিট থেকে ৯:৩০ মিনিট পর্যন্ত। এই সময়টি নরসিংদী জেলার মানুষের জন্য উপযুক্ত। কারণ, এই সময়ে মানুষ কাজ শেষ করে তারাবিহ নামাজে অংশগ্রহণ করতে পারে।

রোজার ক্যালেন্ডার নরসিংদী ২০২৪

রমজান মাস ইসলামের পঞ্চম মাস। এই মাসে মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার ও ইন্দ্রিয় সংযম করে থাকেন। রমজান মাসের গুরুত্ব সম্পর্কে কোরআনে বলা হয়েছে, “রমজান মাস হলো সেই মাস, যাতে কুরআন অবতীর্ণ করা হয়েছে, যা মানুষের জন্য হেদায়াত ও সত্যপথের স্পষ্ট নিদর্শন এবং সৎকর্মের পার্থক্যকারীরূপে অবতীর্ণ করা হয়েছে। সুতরাং তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি এ মাস পাবে, সে যেন এ মাসের রোজা রাখে। আর যে ব্যক্তি অসুস্থ বা সফরে থাকে, সে অন্য দিনে সমান সংখ্যায় রোজা রাখবে। আল্লাহ তোমাদের জন্য সহজতা চান, কষ্ট চান না। তোমাদের উদ্দেশ্য হলো তোমরা রোজা রাখতে পারো, তাকওয়া অবলম্বন করতে পারো।” (সূরা বাকারা, আয়াত: ১৮৫)

                        পবিত্র মাহে রমজান ১৪৪৫ হিজরি, ২০২৪ ইং 
         সেহরি এবং ইফতারের সময়সূচী 
             (নরসিংদী জেলার জন্য প্রযোজ্য)
রোজা তারিখ বার সেহরির
শেষ সময়
ইফতারের
সময় 
112 মার্চমঙ্গলবার4.496.09
213বুধবার4.486.09
314বৃহস্পতিবার4.476.09
415শুক্রবার 4.466.1o
516শনিবার4.456.1o
617রবিবার4.446.1o
718সোমবার4.436.11
819মঙ্গলবার4.426.11
920বুধবার4.416.11
1021বৃহস্পতিবার4.4o6.12
1122শুক্রবার 4.396.12
1223শনিবার4.386.13
1324রবিবার4.376.13
1425সোমবার4.366.14
1526মঙ্গলবার4.356.14
1627বুধবার4.336.15
1728বৃহস্পতিবার4.316.15
1829শুক্রবার 4.3o6.16
1930শনিবার4.296.16
2031রবিবার4.286.16
211 এপ্রিলসোমবার4.276.17
222মঙ্গলবার4.266.17
233বুধবার4.256.17
244বৃহস্পতিবার4.246.18
255শুক্রবার 4.236.18
266শনিবার4.226.19
277রবিবার4.216.19
288সোমবার4.2o6.2o
299মঙ্গলবার4.196.2o
3010বুধবার4.186.21

নরসিংদী জেলার রমজানের সময়সূচি মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সময়সূচি অনুযায়ী, নরসিংদী জেলার রোজাদাররা রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষা করতে পারবেন।

উপরোক্ত ক্যালেন্ডার টি শুধুমাত্র নরসিংদী জেলার মানুষ এর জন্য প্রযোজ্য। ঢাকার সাথে এই জেলার সেহরির সময় ২ মিনিট কমানো এবং ইফতার এর সময় ১ মিনিট কমানো।

রমজানের আমল ও আচার-অনুষ্ঠান

রমজান মাসের শুরুতেই নরসিংদী জেলার মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা রোজার নিয়ত করেন। রোজার সময় তারা ইবাদত-বন্দেগিতে রত থাকেন। তারা মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়েন, কুরআন তিলাওয়াত করেন এবং দোয়া করেন। তারা গরিব-দুঃখীদের সাহায্য করেন এবং তাদের সাথে খাবার ও ইফতার ভাগ করে নেন।

রমজান মাসের শেষে তারা ঈদুল ফিতর উদযাপন করেন। এই দিনে তারা নতুন জামাকাপড় পরে, ঈদের নামাজ পড়েন এবং আনন্দ-উৎসব করেন।

রমজানের বিশেষ তাৎপর্য

রমজান মাস ইসলামের পবিত্রতম মাস। এই মাসে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআন নাযিল করেন। রমজান মাসের রোজা রাখা ফরজ। রোজা রাখার মাধ্যমে মানুষ নিজেকে সংযত রাখতে শেখে এবং আল্লাহর প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে।

রমজান মাসের আরেকটি বিশেষ তাৎপর্য হলো এই মাসে জাহান্নামের দরজা বন্ধ হয়ে যায় এবং বেহেশতের দরজা খুলে যায়। এই মাসে আল্লাহ তায়ালা বেশি বেশি রহমত বর্ষণ করেন।

নরসিংদী জেলার রোজাদারদের জন্য কিছু পরামর্শ

রমজান মাসের রোজা রাখার সময় নরসিংদী জেলার রোজাদারদের জন্য কিছু পরামর্শ দেওয়া হলো:

  • রোজা রাখার আগে ভালোভাবে খাওয়া-দাওয়া করুন।
  • রোজা রাখার সময় পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন।
  • রোজা রাখার সময় ইবাদত-বন্দেগি করুন এবং কুরআন তিলাওয়াত করুন।
  • রোজা রাখার সময় গরিব-দুঃখীদের সাহায্য করুন।

আরো দেখুনঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top